ইমেইল মার্কেটিং কি? কেন করতে হয়? কিভাবে করতে হয়?

ইমেইল মার্কেটিং কি? কেন করতে হয়? কিভাবে করতে হয়? অনেকেই এই বেপারে জানে না। আবার অনেকেই মনে করে প্রতিনিয়ত যে ইমেইল সেন্ড করা হয় সে রকমই ইমেইল মার্কেটিং। এই আর্টিকেলে সব ক্লিয়ার ধারণা হয়ে যাবে।

ইমেইলের মাধ্যমে কোন ব্যবসা বা পণ্যের প্রচার করাকে ইমেইল মার্কেটিং বলে। অর্থাৎ, আমার একটি শপিং মল আছে। সেখানে নতুন নতুন জামা-কাপড়, প্যান্ট-শার্ট বিক্রি হয়। আপনি তো জানেন না যে, কোন সময় নতুন স্টাইলের জামা-কাপড়, প্যান্ট-শার্ট আসে। তাই যখনি একটি নতুন জামা-কাপড়, প্যান্ট-শার্ট আসবে তখনি আপনাকে ইমেইল করে জানিয়ে দেওয়া হবে যে নতুন জামা-কাপড়, প্যান্ট-শার্ট আসছে। তারপর আপনি শপিং মলে আসবেন ভাল লাগলে কিনবেন। আর এই পুরো প্রক্রিয়াটাই হচ্ছে ইমেইল মার্কেটিং।

ই-মেইল সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। যথা-

১। সাধারণ ই-মেইল
২। বিজনেস ই-মেইল

সাধারণ ই-মেইল

সাধারণ ইমেইল বলতে বুঝায় অন্যান্য ইমেইল আইডিতে নিজের বানানো বার্তা পাঠানো। যেমনঃ জিমেইল, ইয়াহু, হটমেইল ইত্যাদি। আর বেশিরভাগ (Android) স্মার্টফোন ব্যাবহারকারীর জিমেইল আইডি আছে।
কিন্তু, আপনি ইমেইল মার্কেটিং করার জন্য Gmail, Yahoo বা Hotmail এর মতো সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবেন না।

কারণ, Gmail, Yahoo, Hotmail বা অন্য ফ্রি ইমেইল একাউন্ট থেকে শুধু কিছু নির্ধারিত সংখ্যায় ইমেইল পাঠাতে পারবেন। এবং, এটাও হতে পারে যে একসাথে হাজার হাজার ইমেইল পাঠানোর জন্য email spamming এর সন্দেহে আপনার ইমেইল অ্যাকাউন্ট Gmail, Yahoo বা Hotmail দ্বারা ব্লক হয়ে যেতে পারে।

বিজনেস ইমেইল

আপনার কোম্পানির নামে যে ইমেইল তৈরি করা হয় সেটাই হচ্ছে বিজনেস ইমেইল। যেমনঃ support@growonlinebd.com এই ধরনের ই-মেইল গুলো হচ্ছে বিজনেস ই-মেইল। কিন্তু এই ই-মেইলটি ফ্রী পাওয়া যাবে না।

যেকোনো ডোমেইন-হোস্টিং কোম্পানির কাছ থেকে কিনে নিতে হবে। তাছাড়া ডোমেইন-হোস্টিং কিনলে ডোমেইনের নামে ফ্রী তৈরি করা যাবে। ডোমেইন-হোস্টিং কোম্পানির SMTP ব্যবহার করে MailChimp বা অন্যান্য টুলস এর সাহায্যে, দিনে হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ ইমেইল সেন্ড করতে পারবেন, আপনার কোম্পানির প্রচারের জন্য।

ই-মেইল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়?

ইমেইল মার্কেটিং করার জন্য প্রথমে আপনাকে টার্গেটেড কাস্টমারের ইমেইল জোগাড় করতে হবে। এই টার্গেটেড ইমেইল গুলো আপনার ওয়েবসাইটে জমা করতে হবে অথবা একটি ইমেইল লিস্ট তৈরি করতে হবে।

এজন্য আপনাকে ইমেইল মার্কেটিং সফটওয়্যার বা টুলস ব্যবহার করতে হবে। অনলাইন ইন্টারনেটে অনেক ইমেইল মার্কেটিং টুলস রয়েছে যেগুলির ব্যবহার করে এক সাথেই হাজার হাজার ইমেইল পাঠিয়ে আপনি নিজের বিজনেস এর মার্কেটিং করতে পারবেন। আর যদি আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাবহার করেন তাহলে Plugin install করলে হয়ে যাবে।

নিচে কয়েকটি জনপ্রিয় ইমেইল মার্কেটিং সফটওয়্যার বা টুলস এর নাম উল্লেখ করলাম:

MailChimp টুলটি খুব জনপ্রিয়। এটি ফ্রী এবং পেইড দুইভাবে ব্যবহার করতে পারবেন। প্রতি মাসে ফ্রীতে ২,০০০ মেইল কালেক্ট করতে পারবেন এবং ১২,০০০ মেইল সেন্ড করতে পারবেন। এর বেশি মেইল পাঠাতে হলে প্রিমিয়াম ভার্সন ব্যবহার করতে হবে। আর প্রিমিয়াম ভার্সনের ক্ষেত্রে দুইটা প্যাকেজ আছে প্রতি মাসে নয় মার্কিন ডলার এবং দুইশ মার্কিন ডলার। আপনি কোন প্যাকেজটা নিবেন সেটা নির্ভর করবে আপনার কোম্পানির উপর।

হ্যাঁ, এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে আমি যে ইমেইল মার্কেটিং করব এত ইমেইল কোথায় পাব?

আপনার যে ওয়েবসাইট আছে (অ্যাফিলিয়েট, ব্লগ, ই-কমার্স) সেই ওয়েবসাইটে Subscriber, PopUp form তৈরি করতে হবে। এতে আপনার সাইটের যে ভিজিটর আছে তারা ফ্রীতে ইমেইল দিয়ে Subscribe করবে। তারপর MailChimp এই ইমেইল গুলো সংগ্রহ করে লিস্ট করবে।

তারপর প্রয়োজনমত আপনি সেইসব ইমেইল ঠিকানাই মেইল করতে পারবেন। আপনার যদি আরও বেশি ইমেইলের প্রয়োজন পরে তাহলে MailChimp বা অন্যান্য টুলস এর থেকে ইমেইল কিনে নিতে পারবেন।

ইমেইল মার্কেটাররা কি কি উপায়ে ইনকাম করতে পারে:

ইমেইল মার্কেটিং এ যদি আপনি দক্ষ হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি ইমেইল মার্কেটিং সেক্টরে ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিং করতে পারেন। যেমনঃ ইমেইল টেমপ্লেট ডিজাইন/তৈরি, ইমেইল লেখা, লিস্ট করা, ইমেইল পাঠানো ইত্যাদি। এছাড়াও বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ইমেইল বিক্রি করতে পারবেন।

তাহলে, ইমেইল মার্কেটিং কি? কেন করতে হয়? কিভাবে করতে হয়? এই ব্যাপারে হয়তো আপনারা এখন ভালো করে বুঝে গেছেন।

Comments 3

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »